ইংল্যান্ড ঘরের মাঠে বিশ্বকাপে ফেভারিট

প্রকাশিতঃ ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০১৯ আপডেটঃ ৩:৪৬ অপরাহ্ন

শুধুমাত্র হোম কন্ডিশনে খেলবে বলেই নয়, ওয়ান ডে ক্রিকেটের প্রতি তাদের মনোভাবে বদল এনেছে ব্রিটিশরা। ঠিক এই কারণেই ভারত নয়, বরং আসন্ন বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে ট্রফি জয়ের সবচেয়ে বড় দাবিদার হিসেবে মনে করেন সুনীল গাভাস্কার। ইংল্যান্ড-ওয়েলসের মাটিতে আসন্ন বিশ্বকাপ নিয়ে একটি আলোচনা পর্বে এমনটাই জানালেন এই বর্ষীয়ান কিংবদন্তি ক্রিকেটার। একইসঙ্গে পন্ত নয়, ভারতের বিশ্বকাপগামী দলে সুযোগ পাওয়ার বিষয়ে দীনেশ কার্তিককেই এগিয়ে রাখলেন তিনি।

গাভাস্কারের মতে, কার্তিক ভারতীয় দলে তার যে বিশ্বাসযোগ্যতা প্রমাণ করেছে, ফলস্বরূপ ইংল্যান্ডগামী বিমানে পন্তের আগে ওর ঠাঁই হওয়া উচিৎ। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে আসন্ন হোম সিরিজে কার্তিককে ছাড়াই দলঘোষণা করেছেন নির্বাচকেরা। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মাটিতে আশানরূপ পারফরম্যান্সের পরও কার্তিকের বাদ পড়ার ঘটনায় হতবাক অনেকেই। একইসঙ্গে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড সিরিজে ডাক না পেলেও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে ওয়ান ডে সিরিজে দলে সুযোগ পেয়েছেন ঋষভ পন্ত। এই প্রসঙ্গে তুলনা টানতে গিয়েই বিশ্বকাপের মঞ্চে দেশের জার্সিতে কার্তিককে দেখার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন টেস্ট ক্রিকেটে ৩৪টি শতরানের মালিক।

প্রাথমিকভাবে বিশ্বকাপগামী দলে ১৩ জন অবশ্যম্ভাবী ক্রিকেটারের নাম জানাতেও ভোলেননি তিনি। ১৪ এবং ১৫ তম সদস্য নিয়ে দোটানায় থাকলেও গাভাস্কারের ১৩ জনের দলে স্থান পেয়েছেন- শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, অম্বাতি রায়ডু, মহেন্দ্র সিং ধোনি, কেদার যাদব, দীনেশ কার্তিক, হার্দিক পান্ডিয়া, ভুবনেশ্বর কুমার, যুবেন্দ্র চাহাল, জসপ্রীত বুমরা, মহম্মদ শামি এবং কুলদীপ যাদব।

ইংল্যান্ডের আবহাওয়ায় দুই জোরে বোলার অল-রাউন্ডারের কথা মাথায় রেখে ১৪ তম সদস্য হিসেবে লিটল মাস্টারের পছন্দের তালিকায় রয়েছেন বিজয় শংকর। আর ১৫ তম সদস্য হিসেবে খলিল আহমেদ, মহম্মদ সিরাজ এবং উমেশ যাদবের মধ্যে থেকে একজনকে তাদের পারফরম্যান্স বিবেচনা করে বাছাই করার কথা জানান গাভাস্কার। একইসঙ্গে কার্তিককে নিয়ে তার আরও সংযোজন, অতীতে পাঁচদিনের ক্রিকেটে আমরা কার্তিককে ওপেন করতে দেখেছি। তাই ওয়ান ডে ক্রিকেটেও ওপেনে ব্যাট হাতে নামার যাবতীয় রসদ মজুত রয়েছে ওর মধ্যে।

বিশ্বকাপে ফেভারিট তকমা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে কিংবদন্তি এই প্রাক্তন ক্রিকেটার জানান, ২০১৫ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের কাছে হারের পর বদল এসেছে ইংল্যান্ডের খেলার ধরনে। এরপর থেকে ওয়ান ডে ক্রিকেটে তাদের মনোভাব বদল হয়েছে। দল নির্বাচনের ক্ষেত্রেও তারা একটা সঠিক পদ্ধতি অবলম্বন করেছে। সবমিলিয়ে আসন্ন বিশ্বকাপে সবচেয়ে শক্তিশালী এবং ব্যালান্সড দল ইংল্যান্ডই। দুর্দান্ত ওপেনিং জুটি, মিডল অর্ডারে দুর্ধর্ষ সব ব্যাটসম্যান এবং সর্বোপরি দলে নির্ভরযোগ্য অল-রাউন্ডারের উপস্থিতি বিশ্বকাপে তাদের ফেভারিট করে তুলেছে।

এসএইচ-১৩/১৭/১৯ (স্পোর্টস ডেস্ক)