মুজিববর্ষ উদযাপনে রাজশাহী কলেজের প্রস্তুতি শুরু

প্রকাশিতঃ জানুয়ারী ২, ২০২০ আপডেটঃ ১০:০৬ অপরাহ্ন

বছরজুড়ে রাজশাহী কলেজের উদ্যোগে পালন করা হবে মুজিববর্ষ। এরই প্রস্তুতিস্বরুপ ‘মুজিববর্ষ উদযাপনে করণীয়’ নিয়ে কলেজের বিভিন্ন সহশিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনাকারী সংগঠনের উপদেষ্টা শিক্ষকমন্ডলী ও নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় কলেজ মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান।

সভায় কলেজের প্রায় চল্লিশোর্ধ সহশিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনাকারী সংগঠের নেতৃবৃন্দ ও শিক্ষক উপদেষ্টাবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। এসময় মুজিববর্ষে করণীয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষে শিক্ষক উপদেষ্টা ও নেতৃবৃন্দ মুজিববর্ষ পালনে তাদের চিন্তা, পরামর্শ ও আইডিয়ার কথা তুলে ধরেন।

সভায় সকলের মতামত মনযোগ দিয়ে শোনেন কলেজ অধ্যক্ষ। শেষে সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান বলেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় মুজিববর্ষ পালনের নির্দেশিকা প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানকেই জানাবে। কিন্তু আমরা চাই, মুজিববর্ষ পালনে রাজশাহী কলেজ তার স্বকীয়তার পরিচয় দেবে। তাই আজকে আমরা এখানে উপস্থিত হয়েছি।

ছাত্র নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, তোমাদের মধ্য থেকে অনেক আইডিয়া উঠে এসেছে। যা হয়তো আমাদের শিক্ষকদের মাথা থেকে আসত না। কারণ তোমাদের মেধা বর্তমানে আমাদের চেয়ে বেশি শাণিত।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নামের সাথেই আমাদের মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা, স্বাধিকার আন্দোলন জড়িত। তাই মুজিববর্ষে আমরা ফুটিয়ে তুলতে চাই আমাদের স্বাধীনতা, স্বাধিকার আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধসহ আরো অনেক বিষয়কে।

তিনি আরও বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে সরকারের বিভিন্ন দপ্তর তাদের সেবার মান বাড়িয়েছে। পালন করছে সেবাসপ্তাহ। আমরাও চেষ্টা করব কিভাবে আমাদের শিক্ষার মান আরও উন্নত করা যায়, এবং সেগুলো নিয়ে কাজ করব।

রাজশাহী কলেজের করণীয় নিয়ে অধ্যক্ষ বলেন, আগামী একবছরের জন্য ক্যাম্পাসে তৈরী করা হবে ‘মুজিব মঞ্চ’। এছাড়া থাকবে বঙ্গবন্ধুকে ঘিরে তৈরী প্রায় ১০০ফুট লম্বা ফটোগ্যালারী ও ক্যানভাস। এবং পুরো বছরজুড়েই বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে জাতির জনককে স্মরণ করা হবে। শুধু বলার মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে তা কাজে বাস্তবায়নে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান দেশসেরা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান।

সভায় উপস্থিত ছিলেন মুজিববর্ষ উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক প্রফেসর পিযুষকান্তি ফৌজদার, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য প্রফেসর জুবাইদা আয়েশা সিদ্দিকাসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ২০২০-২১ খ্রিস্টাব্দকে মুজিব বর্ষ হিসেবে পালনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। ২০২০ খ্রিস্টাব্দের ১৭ই মার্চ থেকে ২০২১ খ্রিস্টাব্দের ২৬ মার্চ পর্যন্ত এ বর্ষ উদযাপন করা হবে। ২০২১ খ্রিস্টাব্দের ২৬ মার্চ তারিখে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করা হবে। ফলে মুজিববর্ষ দেশ-জাতির কাছে বিশেষ তাৎপর্য বহন করছে।

বিএ-১৬/০২-০১ (নিজস্ব প্রতিবেদক)