বিকাল ৪:৫০
রবিবার
৪ ঠা ডিসেম্বর ২০২২ ইংরেজি
২০ শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
১০ ই জমাদিউল-আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আর্জেন্টিনা বাদ পড়লে ব্রাজিলকে সমর্থন করবেন স্কালোনি

ফুটবল বিশ্বে আর্জেন্টিনা আর ব্রাজিল চিরশত্রু। তারা যখন মুখোমুখি হয়, যেন আগুন আর বারুদ এক হয়ে যায়। তাদের সমর্থনে বিশ্ব ভাগ হয়ে যায় দুই ভাগে। আর্জেন্টিনার সমর্থক ব্রাজিলকে সমর্থন করছে, এমনটা খুবই বিরল। কিন্তু আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি সেই দলে নয়, নিজের দেশ নকআউটে উঠতে না পারলে কাতার বিশ্বকাপে ব্রাজিলকে সমর্থন দেবেন তিনি।

আর্জেন্টিনার মতো ব্রাজিল কোনও ধরনের বাধার মুখোমুখি হয়নি। প্রথমে সার্বিয়া, তারপর সুইজারল্যান্ডকে হারিয়ে আগেভাগে নিশ্চিত করেছে শেষ ষোলো। অন্যদিকে আর্জেন্টিনা সৌদি আরবের কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু করেছে। মেক্সিকোর বিপক্ষে ঘুরে দাঁড়িয়ে তারা শেষ ম্যাচ খেলতে নামছে পোল্যান্ডের বিপক্ষে। হারলেই বাদ, এমন সমীকরণে দাঁড়িয়ে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

বুধবার বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১টায় দোহায় পোল্যান্ডের মুখোমুখি হচ্ছে আর্জেন্টিনা। জিততেই হবে তাদের, আর ড্র করলে সৌদি আরব ও মেক্সিকো ম্যাচের ফলের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। এমন ম্যাচের আগের সংবাদ সম্মেলনে নকআউটে ওঠা ব্রাজিলকে অভিনন্দন জানালেন স্কালোনি।

আর্জেন্টিনাকে ২৮ বছরের শিরোপা খরা ঘুচিয়ে দেওয়া এই কোচ বললেন, ‘আমি একজন দক্ষিণ আমেরিকান এবং আমি খুশি যে ব্রাজিল পার করেছে। যদি আর্জেন্টিনা না পারে, আমি চাইবো একটি দক্ষিণ আফ্রিকান দল জিতুক। যে কেউ অন্য কিছু ভাবলে ভুল করবেন। ব্রাজিল সত্যিই ভালো করছে এবং আমি তাদের অভিনন্দন জানাই।’

বিশ্বকাপ ফুটবলের মঞ্চে নোরার নামে স্লোগান

বিশাল মঞ্চের সামনে দাঁড়িয়ে অগণিত দর্শক। বাহারি আলোকছটায় বর্ণিল দোহার আল বিদা পার্কের পুরো এলাকা। উপস্থিত দর্শকদের চোখে-মুখে কেবলই উচ্ছ্বাস। বলিউডের হার্টথ্রব নায়িকা নোরা ফাতেহির মঞ্চে আগমনের অপেক্ষা। সমস্বরে সবাই স্লোগান দিচ্ছেন— ‘নোরা নোরা নোরা।’ অভিনেত্রী নোরা ফাতেহি তার ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে বেশ কিছু ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করেছেন। তাতে এমন দৃশ্য দেখা যায়।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাতারে বসেছে ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবলের এবারের আসর। এই আসরে নোরা ফাতেহি পারফর্ম করবেন তা আগেই জানা গেছে। অবশেষে ফিফা ফ্যান ফেস্টিভ্যালে পারফর্ম করলেন নোরা। মঞ্চে তার আবেদনময়ী উপস্থিতি ও ঝড় তোলা নাচ মুগ্ধ করেছে ভক্তদের।

সংযুক্ত আরব আমিরাতভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গলফ টাইমস ডটকম এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় দোহার আল বিদা পার্কে অনুষ্ঠিত হয় ফিফা ফ্যান ফেস্টিভ্যাল। এতে পারফর্ম করেন ভারতীয় অভিনেত্রী নোরা ফাতেহি।

‘বিগ বস’ রিয়েলিটি শোয়ের মাধ্যমে ভারতীয় শোবিজ অঙ্গনে পা রাখেন নোরা। তেলেগু ভাষার ‘টেম্পার’, ‘বাহুবলি: দ্য বিগিনিং’, ‘কিক টু’, বলিউডের ‘সত্যমেভ জয়তে’, ‘স্ট্রিট ড্যান্সার থ্রিডি’ সিনেমার গানে নেচে বিশেষ পরিচিত লাভ করেন তিনি।

শুধু বড় পর্দায়ই নয়, ছোট পর্দা এবং মিউজিক ভিডিওতেও সমান জনপ্রিয় তিনি। ‘ঝলক দিখলা যা’, ‘কমেডি নাইটস’, ‘এমটিভি ট্রল পুলিশ’সহ বেশ কিছু রিয়েলিটি শোয়ে পারফরর্ম করেও নজর কাড়েন তিনি।

রাজশাহীতে ৮ শর্তে বিএনপিকে গণসমাবেশের অনুমতি

আটটি শর্তে রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ আয়োজন ও মাইক ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে পুলিশ। বিএনপির আবেদন অনুযায়ী রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদরাসা ময়দানে (হাজী মুহম্মদ মুহসীন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ) গণসমাবেশ আয়োজনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) রাজশাহী নগর পুলিশের বিশেষ শাখার উপকমিশনার মো. আবদুর রকিব বিএনপি চেয়ারপারসনের অন্যতম উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনুকে চিঠি দিয়ে অনুমতি দেওয়ার কথা জানান। এই অনুমতিপত্রে পুলিশের পক্ষ থেকে আটটি শর্ত তুলে ধরা হয়েছে।

শর্তগুলো হলো- মাদরাসা ময়দান চত্ত্বরের মধ্যে সমাবেশের যাবতীয় কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। সমাবেশস্থলের আশপাশসহ রাস্তার কোনো অবস্থাতেই সমবেত হওয়া এবং যান ও জন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না। নিরাপত্তার জন্য সমাবেশে আগতদের চেকিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে এবং নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পর্যাপ্ত সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক (দৃশ্যমান আইডি কার্ডসহ) নিয়োগ করতে হবে।

দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও সামাজিক-ধর্মীয় মূল্যবোধ, রাষ্ট্রীয় ভাবমূর্তি ও জাতীয় নিরাপত্তা বিঘ্নিত হয় এমন কোনো কার্যকলাপ এবং উষ্কানিমূলক বক্তব্য প্রদান ও প্রচারপত্র বিলি করা যাবে না।

সমাবেশে আসা-যাওয়ার পথে শোভাযাত্রা ও মিছিল করাসহ আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এরূপ কর্মকাণ্ড করা যাবে না। ব্যানার-ফেস্টুন ও পতাকাতে কোনো লাঠি ও রড ব্যবহার করা যাবে না। ব্যানার-ফেস্টুনের ব্যবহার সীমিত করতে হবে।

আযান, নামাজ ও অন্যান্য ধর্মীয় সংবেদনশীল সময় মাইক/শব্দযন্ত্র ব্যবহার করা যাবে না। ধর্মীয় অনুভূতির উপর আঘাত আসতে পারে এমন কোনো বিষয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন, বক্তব্য প্রদান বা প্রচার করা যাবে না।

মঞ্চ তৈরির সঙ্গে যারা জড়িত (আইডি কার্ডসহ) তারা ব্যতীত অন্য কেউ আগামী ৩ ডিসেম্বরের আগে সমাবেশস্থলে প্রবেশ কিংবা অবস্থান করতে পারবে না। সমাবেশের যাবতীয় কার্যক্রম দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৫টার মধ্যে শেষ করতে হবে। সমাগত নেতাকর্মীরা যাতে কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে দায়িত্বশীল নেতারা বা আয়োজকদের সেই দায়িত্ব নিতে হবে।

নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় সমাবেশস্থলের অভ্যন্তরে ও বাইরে উন্নত রেজ্যুলেশনযুক্ত সিসি ক্যামেরা স্থাপন করতে হবে। সমাবেশস্থলের বাইরে বা সড়কের পাশে প্রজেক্টর/মাইক/সাউন্ড বক্স ব্যবহার করা যাবে না। সমাবেশস্থলে ইন্টারনেট সংযোগ ব্রডব্যান্ড সংযোগ ও রাউটার ব্যবহার করা যাবে না।

যানবাহনগুলো শহরের ভেতরে প্রবেশ করানো যাবে না। রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশের কর্মসূচি পালন থেকে বিরত থাকতে হবে। মূল সড়কে কোনো পার্কিং করা যাবে না।

এই অনুমতিপত্র স্থান ব্যবহারের অনুমতি নয়। স্থান ব্যবহারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে অনুমোদন নিতে হবে। জনস্বার্থে কর্তৃপক্ষ কোনো কারণ দর্শানো ব্যতিরেকে অনুমতি আদেশ বাতিল করার ক্ষমতা সংরক্ষণ করেন।

এর আগে গত অক্টোবরেই বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু এই মাঠ ব্যবহারের জন্য জেলা প্রশাসকের কাছে অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। জেলা প্রশাসক ১ ডিসেম্বর থেকে মাঠটি ব্যবহারের জন্য অনুমতি দিয়েছেন। পরে পুলিশও সমাবেশ আয়োজন এবং সেখানে মাইক ব্যবহারের অনুমতি দিল।

নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের মেয়েদের বড় জয়

তিনটি করে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে খেলতে বাংলাদেশের নারী জাতীয় দল এখন নিউ জিল্যান্ডে। আগামী শুক্রবার ক্রাইস্টচার্চে তাদের প্রথম টি-টোয়েন্টি। এর দুই দিন আগে লিংকনে ঘাম ঝরানো ম্যাচে নিউ জিল্যান্ড একাদশকে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে নিগার সুলতানার দল।

টস জিতে নিউ জিল্যান্ডের দল আগে ব্যাটিং নেয়। দশম ওভারে মাত্র ৪৬ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ধাক্কা খায় স্বাগতিকরা। তবে কেট ইব্রাহিমের (২৬) পর সাচি শাহরি (৩৪) ও হান্না রোউইর (৩৩) ৫৪ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ৫ উইকেটে ১২৪ রান করে নিউ জিল্যান্ড।

বাংলাদেশের পক্ষে সানজিদা আক্তার মেঘলা সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন।

লক্ষ্যে নেমে মুর্শিদা খাতুন ও দিলারা আক্তারের ৭৭ রানের জুটিতে জয়ের ভিত গড়ে বাংলাদেশ। ৭৭ থেকে ৯৭ রানের মধ্যে তিন উইকেট হারালেও জয় পেতে সমস্যা হয়নি। ১৮ ওভারে ৩ উইকেটে ১২৫ রান করে বাংলাদেশ। ইনিংস সেরা ৩৮ রান করেন মুর্শিদা। ২৪ রান আসে দিলারার ব্যাটে। ফারজানা হক ১৭ ও রুমানা আহমেদ ৯ রানে খেলে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন।

আয়কর রিটার্ন দেওয়ার সময় বাড়লো

আয়কর রিটার্ন দেওয়ার সময় বাড়ালো জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্যক্তিশ্রেণির করদাতারা ২০২২-২৩ অর্থবছরের রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) এনবিআর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

করদাতাদের নিরবচ্ছিন্নভাবে বিশেষ সেবা দিতে নভেম্বর মাসকে করসেবা মাস ঘোষণা করা হয়। এ সময় করদাতারা উৎসবে আমেজে আয়কর দেওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। এর ধারাবাহিকতায় ব্যক্তিশ্রেণির করদাতাদের সুযোগ দিতে রিটার্ন দাখিলের জন্য একমাস বাড়ানো হয়েছে।

এনবিআর থেকে জানানো হয়েছে, আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ দেশের ৩১টি কর অঞ্চলের ৬৪৯টি সার্কেলে কর সেবা পাওয়া যাবে।
করদাতারা নির্ধারিত কর অঞ্চলে তাদের ২০২২-২০২৩ করবর্ষের স্ব স্ব আয়কর রিটার্ন জমা দিতে পারবেন।

প্রতিটি কর অঞ্চলের ওয়েবসাইটে আয়কর সংক্রান্ত বিভিন্ন ফরম, পরিপত্র, রিটার্ন পূরণের নির্দেশিকা, ভিডিও টিউটোরিয়ালসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য থাকবে।

অনলাইনে আয়কর রিটার্ন দাখিল সিস্টেমটি চালু রয়েছে। করদাতারা ওই সিস্টেমে রেজিস্ট্রেশন করাসহ রিটার্ন তৈরি এবং রিটার্ন দাখিল করতে পারছেন। হটলাইন নম্বর ০৯৬১২৭১৭১৭১ এর মাধ্যমে ই-রিটার্ন সম্পর্কে পরামর্শ গ্রহণ করে অনলাইনে রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন।

রেজিস্ট্রেশন বুথে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান সাপেক্ষে নতুন করদাতারা রেজিস্ট্রেশন ও বর্তমান করদাতারা রি-রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

ই-টিডিএস সিস্টেমের মাধ্যমে সব কর অঞ্চলের অধিক্ষেত্রাধীন উৎসে কর কর্তনকারী কর্তৃপক্ষে বাস্তবায়ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। করদাতাদের আয়কর রিটার্ন, টিআইএন আবেদন এবং চালান ফরম দেওয়া হবে। ই-পেমেন্টের মাধ্যমে করদাতারা অনলাইনে আয়কর পরিশোধ করতে পারবেন।

‘বেবি বাম্প’র ছবি প্রকাশ, অন্তঃসত্ত্বা স্বস্তিকা!

আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে হাতে ধরা মোবাইলে তুলে রাখছেন সেলফি। এমনই একটি ছবি সামাজিকমাধ্যমে শেয়ার করছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জি।

সেই ছবি ঘিরেই সামাজিকমাধ্যমে হইচই পড়ে গেছে। কারণ, ছবিতে স্পষ্ট স্বস্তিকার ‘বেবি বাম্প’, যা ইঙ্গিত দিচ্ছে তার অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার দিকেই। তাহলে কি আবার মা হতে চলেছেন নায়িকা? ওই পোস্টে অনেকেই তাকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। তবে সত্য়িই অন্তঃসত্ত্বা স্বস্তিকা, নাকি বিষয়টা অভিনয়ের অংশ।

জানা গেছে, নতুন সিনেমা ‘কালা’তে অন্তঃসত্ত্বার ভূমিকায় থাকছেন স্বস্তিকা। কিন্তু তিনি তার পোস্টে তেমন কিছু না লেখাতেই শুরু হয়েছে গুঞ্জন। যদিও অনেকেই সন্দেহও প্রকাশ করেন, এটা নিশ্চয়ই কোনো অন্তঃসত্ত্বার চরিত্রে অভিনয়ের অংশ।

অন্বিতা দত্ত পরিচালিক সিনেমা ‘কালা’তে স্বস্তিকা ছাড়া অভিনয় করেছেন তৃপ্তি ডিমরি ও প্রয়াত অভিনেতা ইরফান খানের ছেলে বাবিল। দুই সপ্তাহ আগেই মুক্তি পেয়েছে এর ট্রেলার।

ট্রেলার থেকে জানা গেছে, সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার গোত্রীয় হতে চলেছে সিনেমাটি। এতে প্রধান চরিত্র মঞ্জুশ্রীর মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন স্বস্তিকা। তার চরিত্রের নাম উর্মিলা। আগামী ১ ডিসেম্বর নেটফ্লিক্সে মুক্তি পাবে সিনেমাটি।

এ বিষয়ে আরো জানা গেছে, স্বস্তিকা, তৃপ্তি ও বাবিল ছাড়াও সিনেমাটিতে আরো অভিনয় করেছেন অমিত সিয়াল, বরুণ গ্রোভার, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো তারকারা।

বাংলাদেশকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয় ভারত: প্রণয় ভার্মা

প্রতিবেশীদের নিয়ে ভারতের একটি নীতিমালা আছে জানিয়ে ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির নবনিযুক্ত হাই কমিশনার প্রণয় ভার্মা বলেছেন, তার দেশ বাংলাদেশকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতকালে তিনি এ কথা বলেন।

পরে প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব কে এম শাখাওয়াত মুন সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

হাই কমিশনার প্রণয় ভার্মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলেন, প্রতিবেশীদের নিয়ে ভারতের একটা পলিসি আছে। কিন্তু এক্ষেত্রে বাংলাদেশ হচ্ছে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকারে থাকা দেশ। যেকোনো কিছুতে বাংলাদেশের অগ্রাধিকার বেশি।

ভবিষ্যতে দুই দেশের সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হবে আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ-ভারত সব সময়ই ভালো বন্ধু। সামনেও বাংলাদেশ ভারত সম্পর্ক আরও জোরদার হবে।

সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে এক সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করে হাই কমিশনার বলেন, এ অঞ্চলের শান্তি প্রতিষ্ঠায়, সন্ত্রাস দমনে বাংলাদেশ-ভারত এক সঙ্গে কাজ করবে।

সন্ত্রাস প্রসঙ্গে আলাপকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ কখনোই সন্ত্রাসকে প্রশ্রয় দেয়নি। বাংলাদেশের মাটি কখনোই ব্যবহার হবে না সন্ত্রাসী কাজে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ কখনোই সন্ত্রাসকে প্রশ্রয় দেয় না। সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নাই। তাদের কোনো সীমারেখাও নাই।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে এবং স্থল সীমান্ত ইস্যুতে দলমত নির্বিশেষে বাংলাদেশকে সমর্থন করার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেক অমীমাংসিত বিষয় আছে যেগুলো আমরা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে হবে। তিস্তাসহ অন্যান্য যে অমীমাংসিত বিষয় আছে সেগুলো আমরা আলোচনা করেই সমাধান করতে পারি।

বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশনারী লিডারশিপের প্রশংসা করেন ভারতীয় হাই কমিশনার।

দুই দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণ এবং জনগণের সঙ্গে জনগণের কানেকটিভির ওপর জোর দেন হাই কমিশনার।

প্রণয় ভার্মা বলেন, ভারত বিদ্যুৎ-জ্বালানি সেক্টরে বাংলাদেশকে সমর্থন করবে এবং এ বিষয়ে নেপাল-ভুটানের সঙ্গেও কাজ করবে।

বাংলাদেশ-ভারত সমন্বিত অর্থনৈতিক অংশীদারত্ব চুক্তি (সিইপিএ) নিয়ে আলোচনা হয় সাক্ষাতে।

বাংলাদেশে বিনিয়োগ আহ্বান করেন শেখ হাসিনা বলেন, এখানে ব্যবসা বাণিজ্যের জন্য ভালো সুযোগ আছে। আমরা ১০০ ইকোনোমিক জোন করছি। ভারত সেখানে বিনিয়োগ করতে পারো।

চট্টগ্রাম ও মংলা পোর্ট দুই দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য যে সুযোগ ও সম্ভবনা সৃষ্টি করেছে তার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

ভারতীয় হাই কমিশনার গভীর শ্রদ্ধায় বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে বলেন, বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন ছিল সেটা সত্যিই খুব অনুসরণীয়।

এ সময় শেখ হাসিনা বলেন, আমার বাবা জনগণের জন্য তার জীবন উৎসর্গ করেছেন। তার পদাঙ্ক অনুসরণ করে আমিও জনগণের জন্য রাজনীতি করি।

হাই কমিশনার ভারতের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পৌঁছে দেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে ভারতের রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানান।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অ্যাম্ব্যাসাডর-অ্যাট-লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

পরে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টের নিয়মিত সাধারণ সভায় অংশ নেন।

সভায় ট্রাস্টের কার্যক্রম বিষয়ে খোঁজ খবর নেন এবং এর কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন।

একটা ব্যাংকও দেউলিয়া হয়নি, হবেও না: পরিকল্পনামন্ত্রী

একটা ব্যাংকও দেউলিয়া হয়নি এবং ভবিষ্যতেও হবে না বলে উল্লেখ করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে শতভাগ পেনশন সমর্পণকারী গ্রুপ আয়োজিত এক আলোচনা সভার শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

এম এ মান্নান বলেন, একটা ব্যাংকও দেউলিয়া হয়নি, ভবিষ্যতেও কোনো ব্যাংক দেউলিয়া হবে না বলে আমি বিশ্বাস করি। কিছুদিন আগে একটা গুজব ছড়ানো হয়েছিল, ব্যাংকে টাকা পাওয়া যাচ্ছে না। আমি বহু লোককে জিজ্ঞেস করেছি, কেউ ব্যাংকে গিয়ে টাকা পাননি এমন কাউকে পাইনি। এটা সঠিক নয়, কেউ কেউ রাজনৈতিক সংকীর্ণতা থেকে এমনটা প্রচার করছে।

তিনি বলেন, সমগ্র বিশ্বেই একটি অর্থনৈতিক টানাপোড়েন চলছে। আমাদের এখানেও টানাপোড়েন রয়েছে, এটা লুকাবার বিষয় নয়। সেই চাপ আমাদের এখানেও চলে আসে। বিশ্বে মূল্যস্ফীতি কমছে, আমাদের এখানেও খাদ্যদ্রব্য এবং তেলের দাম কমছে। সেই সাথে মূল্যস্ফীতিও নিচের দিকে নামছে। ভবিষ্যতে আরও কমবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমাদের সম্পদের পরিমাণ বাড়ছে, এটা যেমন সত্য, তেমনি বৈষম্যও বাড়ছে, সেটাও সত্য। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সামান্য হলেও উন্নয়ন হচ্ছে। বাংলাদেশে কেউ উপোস থাকে না। আগামীতে আমাদের আর্থিক অবস্থা আরও বাড়বে। কল্যাণমূলক বিভিন্ন কর্মসূচি আরও ভালো হবে। ভবিষ্যতে আরও ভালো রাস্তাঘাট, বিদ্যুৎকেন্দ্র, হাসপাতাল ও স্কুল হবে। কেউ যদি পিছিয়ে থাকে তার জন্য ভাতার ব্যবস্থা রয়েছে। কেউ ভাতার বাইরে থাকবে না।

অনুষ্ঠানে শতভাগ পেনশন সমর্পণকারীরা দাবি করেন রিটায়ারমেন্টের ১৫ বছর পর পেনশন সুবিধা পাওয়ার যে সময় নির্ধারণ করা রয়েছে, সেই সময় যেন কমিয়ে ১০ বছর করা হয়।

এ দাবির বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আপনারা দাবি করেছেন ১০ বছর, এটা ৮ বছর হলে ভালো, ছয় বছর হলে আরও ভালো হয়। আমাদের সক্ষমতা ১৫-২০ বছর আগের তুলনায় অনেক বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই এটা করা সম্ভব। তবে এই মুহূর্তে আমরা কিছুটা সমস্যায় রয়েছি। আপনারাও অনুভব করতে পারেন এই মুহূর্তে সরকার একটু চাপে রয়েছে। তবে চাপটা কেটে যাচ্ছে। আগামী দুই থেকে চার মাসের মধ্যে এই চাপ কেটে যাবে।

খালেদা জিয়া সমাবেশে যোগ দিলে আদালত ব্যবস্থা নেবেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সমাবেশের নামে বিএনপি যদি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নষ্ট করে, তবে তারা ভুল করবে- উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছেন, আগামী ১০ ডিসেম্বর যদি খালেদা জিয়া সমাবেশ যোগ দেন, তাহলে আদালত ব্যবস্থা নেবেন।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত ‘নারী পুলিশের গৌরবময় যাত্রা ও অর্জন ১৯৭৪-২০২২’ শীর্ষক বার্ষিক প্রশিক্ষণ সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিক এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি।

যদি সমাবেশে বেগম খালেদা জিয়া যোগ দেন, তাহলে তার জামিন বাতিল হবে কি না- সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে আদালত ব্যবস্থা নেবেন।

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি অনেক মানুষের সমাগম করবে। তাই তারা দুটি জায়গা চেয়েছিল। এর মধ্যে একটি সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, অন্যটি মানিক মিয়া এভিনিউ। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সব ধরনের জনসমাগম হয়, আর মানিক মিয়া এভিনিউ আগে থেকেই সবার জন্য বন্ধ। সেখানে জাতীয় সংসদ, তাই সেখানে কাউকেই অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হয় না।

তিনি বলেন, আমাদের ডিএমপি কমিশনার বিএনপির দাবির প্রতি লক্ষ্য রেখেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য অনুমতি দিয়েছেন। সেখানে ছাত্রলীগের প্রোগ্রাম ছিল। কিন্তু ১০ ডিসেম্বর বিএনপির সমাবেশের কারণে সেই অনুষ্ঠান এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে।

এখানে তো দুরভিসন্ধিমূলক বা বিশৃঙ্খল অবস্থার প্রশ্নই আসে না- যোগ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, তারা যেহেতু অনেক মানুষ নিয়ে আসবে, তাই যাতে স্বাচ্ছন্দ্যে অনুষ্ঠানটি করতে পারে, সেজন্যই তাদের এই স্থান দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, আমরা সবসময় বলে আসছি, আপনারা শান্তিপূর্ণভাবে আপনাদের পার্টির (বিএনপি) সব কার্যক্রম অবশ্যই করবেন। কিন্তু আপনারা কোনোভাবেই বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে পারবেন না এবং তার চেষ্টাও করবেন না। কারণ আমাদের বাংলাদেশ এখন একটি পর্যায় চলে গেছে, এগিয়ে চলছে। এখানে অহেতুক কোনো বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করলে আমাদের নিরাপত্তাবাহিনী কখনোই তা মেনে নেবে না।

বিএনপি চাচ্ছে না সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করতে, তারা চাচ্ছে নয়াপল্টনে করতে। এ বিষয়ে সরকারের বক্তব্য কী- জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপনারা নিশ্চয়ই জানেন নয়াপল্টনে রাস্তার অবস্থা। তারা যে রকম বলছে, লাখ লাখ লোকের সমাগম হবে। আর তারা যদি রাস্তায় সমাবেশ করে, তবে কী হবে- আপনাদের কাছে আমার প্রশ্ন। এসব বিষয় চিন্তা করেই তাদের বড় একটি জায়গা দেওয়া হয়েছে। এখন বিএনপি যদি না করে, তবে স্পষ্ট করে বলতে চাই, তারা যদি আইনশৃঙ্খলা ভঙ্গ করে বা অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে, তবে ভুল করবে।

২৬ শর্তে আগামী ১০ ডিসেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গণসমাবেশের অনুমতি পেয়েছে বিএনপি। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে দেওয়া এক চিঠিতে সমাবেশের অনুমতির বিষয়ে জানিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকেলে ডিএমপির পক্ষে পল্টন থানার ওসি সালাউদ্দিন মিয়া এই অনুমতিপত্র বিএনপি কার্যালয়ে পৌঁছে দেন। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী কার্যালয় থেকে যাওয়ার পথে পার্টি অফিসের সামনে এই অনুমতিপত্র গ্রহণ করেন।

২০ বছর পর নকআউট পর্বে সেনেগাল

পরের পর্বে যাওয়া নিশ্চিত করতে জয়ের বিকল্প ছিল না। তাই গোল করার তাড়না ছিল চোখে পড়ার মতো।

আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের ম্যাচে শুরুতে এগিয়েও গেল সেনেগাল। পরে এক গোল শোধ করল ইকুয়েডর। কিন্তু সেই স্বস্তি কেড়ে নিয়ে ফের এগিয়ে গেল আফ্রিকান চ্যাম্পিয়নরা। শেষ পর্যন্ত ওই ব্যবধান নিয়েই ২০ বছর পর শেষ ষোলো নিশ্চিত করল আলিয়ু সিসের শিষ্যরা।

এর আগে ২০০২ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো নকআউট পর্বে খেলেছিল সেনেগাল। ওই আসরে দলের ৫ ম্যাচের চারটিতে খেলেছিলেন দলটির বর্তমান কোচ সিসে। এবার তার অধীনেই ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি করল আফ্রিকার জায়ান্টরা। তাছাড়া ২১ ম্যাচ পর কোনো আফ্রিকান দল বিশ্বকাপের মঞ্চে হারিয়ে দিল দক্ষিন আফ্রিকার কোনো দলকে। সর্বশেষ ১৯৯০ সালে কলম্বিয়াকে হারিয়েছিল ক্যামেরুন।

আল রাইয়ানের খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে ২-১ গোলে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে সেনেগাল। প্রথমার্ধে পেনাল্টি থেকে গোল করে সেনেগালিজদের এগিয়ে দেন ইসমাইরা সার। দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ভাগে গোল শোধ করেন ইকুয়েডরের মিডফিল্ডার মোইসেস কাইসেদো। তবে ৭০তম মিনিটে দক্ষিণ আমেরিকার দলটিকে স্তব্ধ করে দেন সেনেগালের কালিদু কুলিবালি।

প্রথমার্ধে দুই দল বেশকিছু সুযোগ নষ্ট করে। কোনো শটে বল পোস্টে ঘেঁষে বেরিয়ে যায়, তো কোনো প্রচেষ্টা রক্ষণে প্রতিহত হয়। ৪২তম মিনিটে সত্যিকারের সুযোগ পেয়েই কাজে লাগায় সেনেগাল। বল নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন সার। তাকে ঠেকাতে গিয়ে ফাউল করে বসেন ইকুয়েডরের ডিফেন্ডার পিয়েরো ইনকাপিয়ে। সঙ্গে সঙ্গে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। আর স্পটকিকে লক্ষ্যভেদ করেন সেনেগালের সার।

দ্বিতীয়ার্ধে খেলার ফেরার মরিয়া চেষ্টা চালায় ইকুয়েডর। সাফল্যও পায় তারা। ৬৭তম মিনিটে ফেলিক্স তরেস দারুণ ফ্লিকে বক্সের মাঝখানের জটলায় বল পাঠালে অরক্ষিত অবস্থায় থাকা কাইসেদো সহজেই বল জালে জড়িয়ে দেন। ইকুয়েডরের জার্সিতে সবচেয়ে কম বয়সে (২১ বছর ২৭ দিন) বিশ্বকাপ ম্যাচে গোল করার কীর্তি এখন কাইসেদোর দখলে।

কিন্তু মাত্র তিন মিনিট পরেই ইকুয়েডরের স্বপ্ন ভাঙেন কুলিবালি। এভারটনের মিডফিল্ডার ইদ্রিসা গানা গেইয়ের বাঁকানো ফ্রি-কিকে বল বক্সে ঢুকে তরেসের কাঁধে লেগে কুলিবালির কাছে যায়। অরক্ষিত অবস্থায় থাকা চেলসি ডিফেন্ডার সহজেই বল জালে জড়িয়ে দেন। এরপর কয়েকবার সুযোগ পেলেও আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি ইকুয়েডর।

৩ ম্যাচে ২ জয় ও ১ হারে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শেষ ষোলোয় উঠলো সেনেগাল। রাতের আরেক ম্যাচে কাতারকে হারিয়ে শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে গ্রুপের আরেক দল নেদারল্যান্ডস। ৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে থেকেই পরের পর্বে খেলবে ডাচরা।