অস্ট্রেলিয়ার ভিসায় কিছু পরিবর্তন আসছে

প্রকাশিতঃ জানুয়ারী ১০, ২০১৮ আপডেটঃ ১:৩১ অপরাহ্ন

অস্ট্রেলিয়ার ভিসা প্রত্যাশী এবং দেশটিতে বসবাসরত প্রবাসীদের জন্য দেশটির অভিবাসন বিভাগ বেশ কিছু নতুন আইনের প্রবর্তন করতে চলেছে নতুন বছরে। সেই সঙ্গে পরিবর্তিতও হবে আগের কয়েকটি অভিবাসন সংক্রান্ত আইন। দেশটির জনপ্রিয় কর্ম ভিসা ৪৫৭ বিলুপ্ত করে অন্য ভিসা প্রতিস্থাপনসহ পেশা তালিকায় বড় ধরনের পরিবর্তন থাকছে এই নতুনত্বের আওতায়। জেনে নেওয়া যাক নতুন বছরে কী কী পরিবর্তন চালু হতে যাচ্ছে।

৪৫৭ কর্ম ভিসার পরিবর্তে টিএসএস ভিসা : অভিবাসীদের দেশ খ্যাত অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিসা ৪৫৭ বাতিলের ঘোষণা আসে গত বছরের এপ্রিলে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল এ ভিসা বাতিল করে এর পরিবর্তে নতুন আইনে অস্থায়ী দক্ষতার ঘাটতি পূরণে টিএসএস ভিসা চালুর ঘোষণা দেন। এ বছরের মার্চ মাস থেকে নতুন এ ভিসা চালু করা হবে এবং ৪৫৭ ভিসা সম্পূর্ণভাবে বাতিল করা হবে। নতুন টিএসএস ভিসা দুটি ভাগে বিভক্ত থাকবে। এর একটি দুই বছরের স্বল্পমেয়াদি (এসটিএসওএল) ও অপরটি চার বছরের দীর্ঘমেয়াদি (এমএলটিএসএসএল)।

স্বল্পমেয়াদি ভিসা ধারায় পেশা তালিকাভুক্ত ভিসাধারীরা একবারমাত্র নবায়নের জন্য ভিসা আবেদন করতে পারবেন এবং এই ভিসায় অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী বসবাসের সুযোগ থাকবে না। অন্যদিকে দীর্ঘমেয়াদি ভিসা ধারায় চার বছর অস্ট্রেলিয়ায় কাজ করার পর আবারও এ ভিসায় আবেদন করার সুযোগ পাবেন অস্ট্রেলিয়ায় আসা প্রবাসীরা। সেই সঙ্গে এই ভিসায় অস্ট্রেলিয়ায় এসে পরবর্তীতে স্থায়ী বসবাসের জন্যও আবেদন করা যাবে। এ ভিসাটির সঙ্গে ৪৫৭ ভিসার অনেক সাদৃশ্য রয়েছে। তবে নতুন এ টিএসএস ভিসার দুটো ভাগেই কিছু আবশ্যিক শর্ত কঠিন করা হবে। এর মধ্যে দীর্ঘ কর্মঅভিজ্ঞতা, ইংরেজি দক্ষতার স্কোর বৃদ্ধি এবং আবশ্যক চারিত্রিক সনদসহ আরও বেশ কিছু শর্ত জুড়ে দেওয়া হতে পারে।

আরও খবর : মালয়েশিয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশিরা আতঙ্কে

পেশা তালিকায় পরিবর্তন : ২০১৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার সরকার দক্ষতার ভিত্তিতে ভিসা প্রদানের পেশা তালিকায়ও আমূল পরিবর্তন এনেছে। এ তালিকায় অনেকগুলো পেশা বাতিল এবং নতুন পেশার যুক্ত করা হয়েছে। গত বছরের এপ্রিল ও জুলাই মাসেই পেশা তালিকায় পরিবর্তন আনা হয়। তবে নতুন টিএসএস ভিসার আওতায় আগামী মার্চ মাস থেকে আরও নতুন পরিবর্তন আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর মধ্যে এসটিএসওএল থেকে আবাসন এবং হসপিটালিটি ব্যবস্থাপক, হেয়ার ও বিউটি সেলুন ব্যবস্থাপক, নিয়োগ পরামর্শক এবং নির্মাণ সহযোগীর পেশাগুলো বাদ দেওয়ার জন্য চিহ্নিত করে রাখা হয়েছে।

অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, সাইকোথেরাপিস্ট, সম্পত্তি ব্যবস্থাপক, রিয়েল এস্টেট এজেন্ট এবং রিয়েল এস্টেট প্রতিনিধি এমন বেশ কয়েকটি পেশা যোগও হতে পারে এ তালিকায়। এ পেশাজীবীদের তালিকায় ২০১৮ সালে অস্ট্রেলিয়ায় পাইলটদের অভাব মোকাবিলার জন্য বিমানের পাইলট অন্তর্ভুক্ত হবে এ রকম একটা ইঙ্গিত ইতিমধ্যে দেওয়া হয়েছে। তবে দীর্ঘমেয়াদি এমএলটিএসএসএল ভিসার পেশা তালিকা অনেকটা আগের মতোই রয়েছে। পেশার পরিবর্তিত পূর্ণ তালিকা অভিবাসন বিভাগের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

স্থায়ী বসবাস ভিসার সংখ্যা কমানো : অস্ট্রেলিয়ার গোটা ভিসা পদ্ধতিই পরিবর্তনের পরিকল্পনা ২০১৭ সাল থেকেই করছে দেশটির বর্তমান ম্যালকম টার্নবুল সরকার। সেই ধারাবাহিকতায় অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী বসবাসের ভিসা প্রদানের আগে আবশ্যক অস্থায়ী ভিসা চালুর পরিকল্পনা করছে সরকার। নতুন এই আবশ্যক ভিসার চালু হতে পারে এ বছর। নতুন ভিসার আওতায় স্থায়ী ভিসায় আবেদন করতে ইচ্ছুকদের এর আগে একটা নির্দিষ্ট সময় অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসের আবশ্যকতার প্রয়োজন পড়বে। এর পাশাপাশি স্থায়ী বসবাসের ভিসার সংখ্যা ৯৯ থেকে কমিয়ে ১০টিতে আনার পরিকল্পনাও রয়েছে সরকারের। যার বাস্তবায়ন এ বছর হতে পারে।

জীবনসঙ্গী ভিসায় কিছু আবশ্যক শর্ত : অভিবাসন সংশোধন সম্পর্কিত একটি বিল অস্ট্রেলিয়ার সিনেটে প্রস্তাব করা হয়েছে। নতুন এই বিলটি পাস হলে পরিবর্তন আসবে দেশটির পার্টনার বা জীবনসঙ্গী অভিবাসন ভিসায়। নতুন আইনের আওতায় পার্টনার ভিসার স্পনসরকে আগে অভিবাসন বিভাগের কাছ থেকে স্পনসর হওয়ার অনুমোদন নিতে হবে। অর্থাৎ স্পনসরশিপের জন্য আগে আবেদন করতে হবে এবং কেবল তা মঞ্জুর হলেই পার্টনার ভিসার আবেদন করা যাবে।

বাবা-মার জন্য ১০ বছর পর্যন্ত অস্থায়ী ভিসা : ২০১৭-১৮ সালের ফেডারেল বাজেটে বাবা-মার জন্য একটি নতুন দীর্ঘমেয়াদি ১০ বছর পর্যন্ত অস্থায়ী বসবাসের জন্য ভিসা ঘোষণা করা হয়েছিল যা ২০১৭ সালের নভেম্বর থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। সিনেটে এতদসংক্রান্ত বিলটি জমা আছে অনুমোদনের অপেক্ষায়। তবে এ বছর নতুন এই ভিসা অনুমোদিত হতে পারে যা অভিবাসীদের বাবা-মাকে বর্ধিত সময় অর্থাৎ ১০ বছর পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ায় থাকার অনুমতি দেবে।

 এসএইচ-০৭/১০/০১ (কাউসার খান: অভিবাসন আইনজীবী, সিডনি, অস্ট্রেলিয়া। প্রথম আলো)