তালাকপ্রাপ্ত গৃহবধূকে ধর্ষণ!

প্রকাশিতঃ জুলাই ২০, ২০১৮ আপডেটঃ ১০:৫২ অপরাহ্ন

স্বামীর কাছে পৌঁছে দেয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে তালাকপ্রাপ্ত এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায়। এ ঘটনায় বুধবার রাতে দুলাল হোসেন (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে পাঠানো হয়।

এর আগে ধষর্ণের ক্ষোভে-দুঃখে অন্যত্র চলে যান ওই গৃহবধূ। পরে ওই গৃহবধূর বাবা তার মেয়েকে ফিরিয়ে এনে বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। ধর্ষক দুলাল উপজেলার দিঘলকান্দি গ্রামের গুল মোহাম্মদের ছেলে।

বড়াইগ্রাম থানার এসআই তহসেনুজ্জামান জানান, প্রায় বছর খানেক আগে নওগাঁ জেলার আত্রাই উপজেলার ইসলামগাতি গ্রামের ফয়েজ আলীর ছেলে সেন্টু ভালোবেসে ওই মেয়েকে বিয়ে করে। বিয়ের পর থেকে সেন্টু শ্বশুর বাড়িতেই থাকত। পরে পারিবারিক অশান্তির জের ধরে অভিভাবকদের চাপে ওই গৃহবধূকে তালাক দিলে সেন্টু নিজ বাড়িতে চলে যায়।

আরও খবর: এক বছর ধরে `একঘরে’ একটি পরিবার!

দুলাল মেয়েটিকে তার স্বামী এলাকাতেই আছে জানিয়ে তার কাছে পৌঁছে দেয়ার প্রস্তাব দেয়। একপর্যায়ে গত ৯ জুন রাতে মেয়েটি বাড়ি থেকে বের হয়ে এলে দুলাল তাকে সেন্টুর কাছে না নিয়ে দিঘলকান্দি বিলের মধ্যে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

ধষের্ণর শিকার গৃহবধু ক্ষোভে-দুঃখে কাউকে কিছু না জানিয়ে অন্যত্র চলে যায়। পরে খোঁজাখুঁজির পর সে ঢাকায় আছে জানতে পেরে স্বজনেরা বুধবার তাকে বাড়িতে নিয়ে এলে সে ধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ করে।

পরে মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে পুলিশ দুলালকে আটক করে। বৃহস্পতিবার তাকে কোর্টের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি।

এমও-১৬/২০-০৭ (উত্তরাঞ্চল ডেস্ক)